প্রসঙ্গঃ সেনাপ্রধানের নির্দেশনা, এজেন্সি এবং গবেট সাংবাদিকতা

323

শেখ মহিউদ্দিন আহমেদঃ এতদিন জানতাম রাজনৈতিক নেতা ও রাষ্ট্রীয় আমলাদের মানের ঘাটতি হয়েছে। অনেক উদাহরন আছে আমাদের কাছে। কিন্তু সশস্ত্র বাহিনীর অফিসার, এজেন্সির লোকজন এবং প্রপাগ্যান্ডা সাংবাদিকদের মধ্যেও যে এই রোগের বিস্তার ঘটেছে ব্যাপক এটা আমার জানতে একটু বেশী সময়ই লেগে গেলো।

এরপরেও আমার ব্যক্তিগত ফেসিনেশন থেকে এখনও মনে করি সশস্ত্র বাহিনীর অফিসারদের জ্ঞান, যোগ্যতা এবং লিডারশীপ অনেকের চেয়ে তুলনামুলক বেশী নানান কারনে। সে ব্যাখ্যায় যাবো না। আমার আজকের লেখার মুল টপিকে যাই।

সম্প্রতি বাংলাভাষায় প্রকাশিত শেখনিউজ ডট কমে ভারতীয় ষড়যন্ত্রে বাংলাদেশ সরকারের সাথে জেনারেলদের মধ্যে যে এক ধরনের নীরব অস্থিরতা শুরু হয়েছে সেটি নিয়ে ৪টি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। বাংলাদেশে ভারতীয় ষড়যন্ত্রকে সামনে রেখে শেখনিউজ এর প্রতিবেদনগুলো প্রস্তুত করা হয়। পক্ষান্তরে ভারতীয় এজেন্সির প্রেসক্রিপশনে সুবীর ভৌমিক বাংলাদেশ সরকার ও সেনাবাহিনীর মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টির লক্ষ্যে নানান ইংরেজি কাগজে ভারতীয় স্বার্থের প্রচারনা চালান।

আমাদের এজেন্সিগুলো এবং সরকারের গবেট প্রপাগ্যান্ডা সাংবাদিকগন শেখনিউজ ডট কমের রিপোর্টের সাথে ভারতীয় ষড়যন্ত্রকে গুলিয়ে ফেলে একই কাতারে নিয়ে আসে; এটাও ভারতীয় এক চাল। বাংলাদেশে আমার গ্রামের বাড়িতে এজেন্সির লোকজন একটু দৌড়ঝাঁপ করে বাহাদুরি দেখায়; অথচ তাদের সদর দপ্তরগুলোতে আমার সম্পর্কে বিশাল বিশাল ফাইল রয়েছে, সেগুলো ঘাঁটলেই আমার সম্পর্কে সঠিক তথ্য পেতে পারে। কিন্তু সেদিকে যাওয়ার চিন্তা তাদের মাথায় নেই। যেমন নেই বেগম খালেদা জিয়ার জন্ম তারিখের বিষয়টি নিয়ে। আমি বহু আগে থেকেই লিখেছি ও বলেছি, সেনাসদরে জেনারেল জিয়ার ফাইলের মধ্যেই বেগম খালেদা জিয়ার জন্ম তারিখের সঠিক তথ্য রয়েছে। কিন্তু সরকারী বা সামরিক লোকজন সে পথে হাঁটবেই না।

যাক বলছিলাম, গবেটগণ লিখেছে সেনাবাহিনীর মধ্যে শেখনিউজ এবং শেখ মহিউদ্দিন আহমেদ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির জন্য প্রপাগ্যান্ডা চালাচ্ছে; বিশাল অপরাধ। আওয়ামী প্রপাগান্ডা মেশিন বলে খ্যাত সাংবাদিক বোরহান কবিরের BANGLA INSIDER এবং অজানা এক দৈনিক মুখপাত্র (কার মুখপাত্র জানি না) হুবহু একই নিউজ প্রকাশ করেছে আমাকে আর সুবীর ভৌমিককে জড়িয়ে। আমার দেশত্যাগ, রাজনৈতিক আদর্শ, আমার আশ্রয় ইত্যাদি নিয়ে বহু ভুল ও মিথ্যাচারের সমন্বয়ে তৈরি করা সংবাদ। নিউজ নিয়ে আমি একটুও চিন্তিত নই। কিন্তু চিন্তা হচ্ছে সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ কিভাবে হঠাৎ করে এই চক্রের ফাঁদে পা দিয়ে বলে বসলেন যে সেনাবাহিনীতে চেইন অব কম্যান্ড নিয়ে ষড়যন্ত্র হচ্ছে, এজন্য তিনি এমনভাবে নির্দেশনা দিলেন যে সত্যিই একটা কিছু ঘটেছিল।

এখন আমি কোনটা সঠিক ধরবো? সংবাদের ষড়যন্ত্র নাকি ষড়যন্ত্রের সংবাদ? কোনদিকে বলেছেন ক্যারাটে ব্ল্যাকবেল্ট পাওয়া সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ? বিএ ২৪২৪ সেনা অফিসার জেনারেল আজিজের বিরুদ্ধেও ষড়যন্ত্র কম নেই; কিন্তু শেখনিউজ ডট কমের কোন রিপোর্টে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর মর্যাদাকে খাটো করা হয়েছে? যদি এজেন্সিগুলো এ সকল রিপোর্টের সারাংশ না বোঝে তবে এদের দিয়ে আর যাই হোক বাংলাদেশ রক্ষা হবে না।

আমি মনে করি বাংলাদেশ সেনাবাহিনী একমাত্র ইন্সটিটিউশন যাদের উপর জনগন এখনও বিশ্বাস রাখে যে, এরা জাতিকে যে কোন অপশাসন থেকে মুক্তি দিতে পারে। এ বিশ্বাসের মর্ম সশস্ত্র বাহিনীকে বুঝতে হবে; জনগণের ট্যাক্সে তাদের বেতন, এদের পরিবার আর আত্মীয়স্বজন কিন্তু জনগন, তারা কিন্তু আর্মি নন। আর তারা যখন শপথ নেন, সেটি নেন দেশ ও জাতির জন্য।

আমাকে তাড়িত করে এ বিষয়গুলো। আজকের আমি আল্লাহ এবং সেনা জেনারেলদের জন্য জীবনে বেঁচে বিদেশে এসেছি ২০০৫ সালের ফেব্রুয়ারিতে; যদিও গবেটদের রিসার্চ ২০০৭ সালে এসেছি। তাই সশস্ত্র বাহিনীর প্রতি আমার দরদ অন্যরকম; এই সশস্ত্র বাহিনীকে, বর্ণবাদী ও সাম্প্রদায়িক ভারতীয় সরকার বা এজেন্সির খপ্পরে পড়তে আমি দেখতে চাইনা। তেমন কিছু আমার নজরে এলে আমি লিখেই যাবো। কোন জেনারেল বা ফিল্ড মার্শাল আমাকে ফেরাতে পারবেন না আশা করি।

সেনাপ্রধান বা অন্য জেনারেলদের সাথে আমার কোন ব্যক্তিগত দ্বন্দ্ব নেই। আমি চাই অন্তত জাতি এবং সকল রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান সত্যের উপরে গড়ে উঠুক আর তা যত নির্মমই হোক। এ জাতি মিথ্যার উপরে গড়ে উঠতে উঠতে অসৎ জাতি হিসেবে এগিয়ে যাক সেটা আমি চাইনা বলেই আমার লেখা চলবে। আমি কোন মানবের অধিনস্ত গোলাম নই। এমনকি ফ্যানাটিক তত্ব ঘৃণা করি। সৃষ্টিকর্তা চাইলে জাতির বোঝা কাঁধে এলেও পিছপা হবো না। কারন আমি পা থেকে মাথা পর্যন্ত রাজনৈতিক এলিমেন্ট। সেনাবাহিনী বা সরকারের যারাই ভারতীয় দালালী করছে বা করতে চাইছে, তাদের আমি জানিয়ে দিচ্ছি দেশের ৯০% জনগন এমন রাষ্ট্রীয় লোকদের অন্তর দিয়ে অপছন্দ করে, পেছনে ঘৃণাও করে; সামনে যত সালাম বা স্যালুট দিক না কেন।

আশাকরি জেনারেলগণ ও জ্ঞানী আমলাবৃন্দ এবং তাদের চালকগণ যাদের আল্লাহ কিছুটা বুদ্ধি ও বিবেক দিয়েছেন সেই রাজনৈতিক লোকজন বুঝতে পারছেন শেখনিউজ ডট কম ও আমার লক্ষ্য। আশাকরি এইবার থেকে বিরোধিতা করতে হলেও এনারা বা তেনারা একটু সঠিক তথ্য নিয়েই পড়াশুনা করে মাঠে নামবেন বা নামাবেন তাদের বরকন্দাজদের।

আর সবশেষে ভারতের খুদ খাওয়া সরকারী আইটি লোকজনকে বলছি, প্রতিদিন বিভিন্ন দেশের আইপি থেকে হাজার বার শেখনিউজ ডট কম হ্যাক করার অপচেষ্টা আপাতত বাদ দিন। সময় চলে যাচ্ছে, সেদিকে নজর দিন। সময় ও স্রোত কারো জন্য অপেক্ষা করে না, অতীতেও করে নাই, সামনেও করবে না।

লেখকঃ রাজনীতি, আইন ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব

Facebook Comments

Hits: 130

SHARE