বাংলাদেশে সরকার এবং জেনারেলদের দ্বন্দ্বঃ হঠাৎ ভারতীয় খেলার রহস্য-(১)

319

শেখনিউজ রিপোর্টঃ বেশ কিছুদিন ধরেই ভারতীয় বেশ কিছু লেখক ও গবেষক নামধারী RAW এর পূর্ণ ও খন্ডকালীন এজেন্টরা বিভিন্ন ওয়েব পত্রিকায় বাংলাদেশের সেনাবাহিনী ও এর প্রধান জেনারেল আজিজসহ কয়েকজন সারভিং লে জেনারেলদের নিয়ে নানান প্রপাগ্যান্ডা শুরু করেছে। এতে সেনাবাহিনী ও নাগরিকদের মধ্যে একধরনের অস্বস্তি ও অস্থিরতা শুরু হয়েছে।

শেখনিউজ ডট কম তার নিজস্ব চ্যানেলের সুত্র থেকে বেশ কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য সংগ্রহ করেছে। তবে সকল কিছুর সারমর্ম হচ্ছে ভারতের নিজেদের মানচিত্র টিকিয়ে রাখতে বাংলাদেশের সশস্ত্র বাহিনীকে নিজেদের পক্ষে রাখার প্রচেষ্টা থেকেই এগুলো করা হচ্ছে। কেবলমাত্র বাংলাদেশের সশস্ত্র বাহিনী ভারতের পক্ষে থাকলে ভারত তার অখণ্ডতা টিকিয়ে রাখতে পারবে; নতুবা পরিনতি তারা ভালো করে জানে বলেই এ প্রচেষ্টা চলছে।

এ দফায় তারা যে খেলা শুরু করেছে তাতে ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা নিজেরাই কয়েকটি ভাগে বিভক্ত হয়ে এই প্রচারনার খেলা শুরু করেছে। আগে থেকেই বাংলাদেশের সশস্ত্র বাহিনীগুলোর মধ্যে তাদের যে গুটিকয়েক আস্থাভাজন অফিসার রয়েছে তাদের মধ্যেই ভারতীয়রা কয়েকটি গ্রূপ বানিয়ে রেখেছে নিজেদের স্বার্থেই। তবে এর মধ্যেও ভারতীয়রা আতংকে থাকে চীন ও যুক্তরাষ্ট্রসহ মুসলিম দেশগুলোর গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর সাথে তাদের সমর্থিত অফিসারদের মধ্য থেকে গোপন সম্পর্ক নিয়ে।

বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীগুলোর অস্তিত্ব ও শক্তিমত্তা ভারতীয়দের সহায়তায় নয় বরং চীনসহ অন্যান্যদের অবদানেই গড়ে উঠেছে। এ বিষয়টি ভারতকে ভুতের মতো সর্বদাই তাড়ায়। ৪০ কোটি মানুষ একবেলা খায় এবং এদের পয়নিস্কাশন সুবিধা নাই, এমন দেশ ভারতের পক্ষে বাংলাদেশের সশস্ত্র বাহিনীকে সার্বিক সহায়তা দিয়ে একটি আধুনিক ও মর্যাদাপূর্ণ বাহিনী হিসেবে গড়ে তোলা বা টিকিয়ে রাখা যে ভারতের পক্ষে সম্ভব নয় এটা ভারত জানে বলেই বাংলাদেশে তারা নানান গেম খেলে থাকে যাতে সবাই এই খেলাগুলো নিয়েই ব্যস্ত থাকে।

বর্তমানে পাকিস্তান, নেপাল এবং সর্বশেষ চীনের সাথে যে সংঘাতময় ও রক্তক্ষয়ী পরিস্থিতির সুচনা হয়েছে; তাতে ভারতের মানচিত্র রক্ষার জন্য তাদের সাপ্লাই রুট খোলা রাখতে হবে; যেন সেভেন সিস্টারকে তারা রক্ষা করতে পারে। আর এই সাপ্লাই রুট হচ্ছে বাংলাদেশের সমতল ভূমি। আর এই সমতল ভূমি ব্যবহারের নিশ্চয়তা কোন বেসামরিক সরকার নয় বরং বাংলাদেশের সশস্ত্র বাহিনীই দিতে পারে।

কিন্তু চীনের সাথে অরুনাচল নিয়ে যুদ্ধ শুরু হলে বাংলাদেশের সশস্ত্র বাহিনী কোন ভুমিকা নেবে সেটি ভারত এখনও নিশ্চিত করে তাদের রিপোর্টে উল্লেখ করতে পারছে না। কারন বাংলাদেশের সশস্ত্র বাহিনীগুলো কম-বেশি প্রায় ৮০% চীনের উপর নির্ভরশীল। আর বাংলাদেশের ৯০% জনগণ জেনেটিক্যালি ভারতীয় আগ্রাসন বিরোধী। সেই হিসেবে বাংলাদেশের সশস্ত্র বাহিনীর মধ্যে ভারতকে টেকটিক্যালি শত্রুপক্ষ মনে করার সংখ্যা সহজেই অনুমেয়।

RAW জাস্ট এই বিষয়টিকে মাথায় রেখেই বাংলাদেশে সরকার প্রধান শেখ হাসিনা, প্রতিরক্ষা উপদেষ্টা মে জেনারেল (অব) তারিক সিদ্দিকি, সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ, সিজিএস লে জেনারেল শফিকুর রহমান এবং পিএসও লে জেনারেল মাহফুজুর রহমানসহ গুরুত্বপূর্ণ কিছু জেনারেলদের নিয়ে নানান গুঞ্জন ছড়িয়ে দিয়েছে।

যে গুঞ্জনের একটি হচ্ছে জেনারেল আজিজ যে কোন সময় ক্ষমতা গ্রহন করতে পারে এমন অবস্থা বিরাজ করায় প্রধানমন্ত্রী তাকে সহসাই সেনাপ্রধানের পদ থেকে সরিয়ে দিচ্ছেন। (চলবে)

Facebook Comments

Hits: 255

SHARE