পিপিইর নামে ১২৮৫ কোটি টাকা লুটঃ ডাক্তারদের আইসলেশনেও নিষেধাজ্ঞা

182

শেখনিউজ রিপোর্টঃ চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য পিপিই কেনার নামে ইতিমধ্যেই ১২৮৫ কোটি টাকা লোপাট হয়েছে বলে জানা গেছে। পুরনো সকল চুরির বিষয়গুলো যেমন সরকারের ঊর্ধ্বতন মহল এড়িয়ে গেছে, এবারেও তারা তেমন বধির হওয়ার অভিনয় করে চলেছেন।

নতুন আরেকটি প্রকল্প হিসেবে দেশটির সব জেলা হাসপাতালে আইসিইউ (নিবিড় পরিচর্যা ইউনিট) স্থাপনের নির্দেশ জারী হয়েছে বাংলাদেশের জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদ বা একনেক-এর এক বৈঠকের পর। এ প্রকল্প থেকে এক বিশাল ধান্দা অপেক্ষমান বলে সন্দেহ ইতিমধ্যেই দানা বেঁধেছে। যদিও প্রধানমন্ত্রী নিজেই সব জেলা হাসপাতালগুলোকে প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি কেনারও নির্দেশ দিয়েছেন।

এদিকে ডাক্তার বা মেডিক্যাল কলেজের শিক্ষক বা স্বাস্থ্য সংশ্লিষ্ট কোন অফিসার বা কর্মী যদি আক্রান্ত হন, যত প্রকারের করোনা আক্রান্ত রোগীর সংস্পর্শেই আসেন না কেন তাদের কোনভাবেই ব্যক্তিগত আইসলেশনে যাওয়া নিষিদ্ধ করা হয়েছে । তবে তারা হাসপাতালে আক্রান্ত অবস্থায় মাত্র ১০ দিনের আইসলেশনের সুযোগ পাবেন। এমন আদেশ বিভিন্ন হাসপাতাল ও মেডিক্যাল কলেজের পক্ষ থেকে সার্কুলার আকারে দেয়া হয়েছে। এমন একটি আদেশ শেখনিউজ ডট কমের হস্তগত হয়েছে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় সংশ্লিষ্ট একটি সুত্র জানিয়েছে, করোনা শুরুর পরে যখন সরকারের বোধোদয় ঘটলো তখন তারা তড়িঘড়ি করে এটিকে টাকা বানানোর একটি মওকা হিসেবে নিলেন। বিশিষ্ট ব্যবসায়ী যার স্বাস্থ্য সম্পর্কে এক রত্তি জ্ঞানও নেই, সেই তেমন একজন স্বাস্থ্যমন্ত্রী উপর মহলের গ্রিন সিগন্যালে এ সুযোগটি হাতছাড়া করতে চাইলেন না।

প্রথম দিকে যেমন নকল মাস্ক সরবরাহ করে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হলে, সরকার কোন পাত্তাই দিলেন না। যে সকল চিকিৎসক এ বিষয়ে প্রশ্ন তুললেন সরকার দলের লোক হওয়া সত্বেও তারাই শাস্তি পেলেন। এরপর সরকার দলের লোকজনের টনক নড়া শুরু হয়। এটা কোন চেতনা বা রাজনীতির বিষয় নয়, এটা হচ্ছে জীবন মরনের বিষয়; তাই এ ক্ষেত্রে আর কেউ ছাড় দিতে চাচ্ছে না।

স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় থেকে ১২৮৫ কোটি টাকার পিপিই ডেলিভারি নেয়া ও ডিস্ট্রিবিউশন করা হয়েছে মর্মে সকল কাগজপত্র প্রস্তুত আছে; কিন্তু বাস্তবে এমন কোন পিপিইর অস্তিত্বই নাই বলে সুত্র জানিয়েছে।

তবে এ বিষয়টি সর্বোচ্চ মহল থেকে গ্রিন সিগন্যালে হয়েছে বলে কেউ সারা শব্দ করছে না। তবে কম বেশী স্বাস্থ্য সেক্টরের সবাই ক্ষুব্ধ। এমনকি সশস্ত্র বাহিনীর স্বাস্থ্য বিভাগেও এর নেতিবাচক প্রভাব পড়বে বলে সুত্র জানিয়েছে।

এদিকে সরকার সেনাবাহিনী ব্যারাকে ফেরত পাঠানোর বিষয়ে নতুন এক টানাপড়েন চলছে বলে অন্য একটি সুত্র জানায়।

Facebook Comments

Hits: 104

SHARE