জয়নাল হাজারী আর প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এর মগজ একই রকম উর্বর !

132

শেখনিউজ রিপোর্টঃ যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এর সর্বশেষ চিকিৎসা প্রেসক্রিপশন নিয়ে বিশ্বব্যাপী হইচই পড়ে গেছে। বেকুব বনে গেছেন তাবৎ দুনিয়ার চিকিৎসক। মানুষ ভাবছে যুক্তরাষ্ট্রের মতো উন্নত একটি দেশের জনগন কিভাবে এমন একজন উর্বর মস্তিস্কের মানুষকে তাদের প্রেসিডেন্ট বানাতে পারে! জীবাণুনাশকের ইঞ্জেকশন দিয়ে করোনাভাইরাস ধ্বংস করা যায় কি না – তা নিয়ে গবেষণা শুরুর পরামর্শ দিয়েছেন ট্রাম্প। (ট্রাম্পের ভিডিও লিঙ্ক) আর এতেই আক্কেল গুরুম দুনিয়াবাসীর।

ম্যালেরিয়ার ওষুধ ক্লোরোকুইনিন প্রয়োগ নিয়ে মাতামাতির পর কোভিড-১৯ এর চিকিৎসায় নতুন প্রেসক্রিপশন নিয়ে হাজির হলেন ট্রাম্প। একইসাথে, কোভিড-১৯ রোগীর শরীরে (ইউভি) বা অতি-বেগুনি আলোকরশ্মির তাপ দিয়ে করোনাভাইরাস মেরে ফেলা যায় কিনা – সেটাও খতিয়ে দেখার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনার উপদেষ্টা সাবেক এমপি জয়নাল হাজারীও এমন একটি চিকিৎসা পদ্ধতির বয়ান দিয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়ার ভিডিওতে। এতে তিনি বলেন, ‘ফুসফুসের উপর বসে আছে ভাইরাসগুলো। এটাকে অপারেশন করে হার্ট যেমন কাটা হয় তেমনি করে কেটে ফুসফুসটাকে বাইরে এনে বা সেখানে রেখে এটার উপর হ্যান্ড স্যানিটাইজার, ডেটল কিংবা অ্যালকোহল, এমনকি শুধু সাবান দিয়ে এটাকে ধুয়ে দেওয়া হোক।’…(ভিডিও লিঙ্ক)

নিয়মিত ব্রিফিংকালে হোয়াইট হাউজের করোনাভাইরাস বিষয়ক রেসপন্স টিমের সমন্বয়কারী ড. ডেবরা ব্রিক্সের দিকে তাকিয়ে মি. ট্রাম্প বলেন, “সুতরাং আমরা যদি দেহকে আলট্রা-ভায়েলেট বা অন্য কোনো শক্তিশালী রশ্মির নিচে রাখি – তাহলে কি হয় আপনারা তা পরীক্ষা করে দেখুন। ঐ আলোক রশ্মি চামড়ার ভেতর দিয়ে বা অন্য কোনো উপায়ে রোগীর শরীরের ভেতর ঢুকিয়ে তার ফল কী হয়, তাও আপনারা দেখুন।“

এরপর প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প শরীরে জীবাণুনাশক প্রয়োগের পরামর্শ দিয়ে বলেন, “জীবাণুনাশক মিনিটের মধ্যে ভাইরাস ধ্বংস করে দিতে পারে। আমরা কি এমন কিছু করতে পারি যাতে দেহের মধ্যে জীবাণুনাশক ঢুকিয়ে দেহকে একেবারে জীবাণুমুক্ত করে ফেলা সম্ভব হয়। সেটা পরীক্ষা করে দেখা খুবই গুরুত্বপূর্ণ হতে পারে।“

বিবিসি লিখেছে এরপর নিজের মাথার দিকে আঙ্গুল দিয়ে ইশারা করে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, “আমি একজন চিকিৎসক নই। কিন্তু আমি এমন একজন মানুষ যার যথেষ্ট ভালো…আপনারা বুঝতে পারছেন আমি কী বলছি।”

ড. ব্রিক্সের দিকে তাকিয়ে এরপর তিনি বলেন, তাপ এবং আলো প্রয়োগ করে করোনাভাইরাসের চিকিৎসার বিষয়ে তিনি কিছু জানেন কি না।

ড. ব্রিক্স উত্তর দেন, তিনি জানেন না। তিনি বলেন, “জ্বর হলে, শরীরের তাপমাত্রা বাড়লে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কাজ করতে শুরু করে। কিন্তু বাইরে থেকে তাপ এবং আলো প্রয়োগ করে চিকিৎসার কথা আমি জানিনা”

তবে আশার কথা, সম্প্রতি একটি সংবাদমাধ্যমের করা জরিপ বলছে, করোনা নিয়ে ট্রাম্প যা বলছেন, তা অধিকাংশ মার্কিনিই বিশ্বাস এবং সমর্থন করেন না। রিপোর্ট বলছে, ২৮ শতাংশ অ্যামেরিকান ট্রাম্পের কথায় সারমর্ম আছে বলে মনে করেন। তার মধ্যে ট্রাম্পের কথা বিশ্বাসযোগ্য বলে মনে করেন ২৩ শতাংশ। বাকিরা সকলেই মনে করেন, ট্রাম্প যা বলছেন, তা অর্থহীন। ডেমোক্র্যাটপন্থীরা তো বটেই, এমনকী, রিপাবলিকানপন্থীরাও মনে করছেন ট্রাম্পের কথা না শুনলেও কোনও ক্ষতি নেই। 

স্বাভাবিক ভাবেই বাংলাদেশের জয়নাল হাজারী এবং যুক্তরাষ্ট্রের ট্রাম্পের এই মগজিয় মিলে উৎফুল্ল ফেনীর মানুষ। এতদিনে তাদের নেতার চেয়েও যোগ্য বিশ্ব নেতা পাওয়া গেছে!

জয়নাল হাজারীর ভিডিও লিঙ্কঃ http://tiny.cc/0f4onz

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ভিডিও লিঙ্কঃ http://tiny.cc/3r5onz

Facebook Comments

Hits: 52

SHARE