যে কারণে বাংলাদেশ এখনও রাষ্ট্র হয় নাই!

101

রেজাউল করিম রনিঃ অনেক কারণের মধ্যে একটা কারণ আজ বলি। পৃথিবীর যে কোন দেশে দেখবেন, বিভিন্ন দলের মধ্যে ক্ষমতার প্রতিযোগিতা থাকার পরেও যখন বিদেশী রাষ্ট্রের সাথে নিজ দেশের স্বার্থ নিয়ে দেন-দরবার করতে হয় সাই এক জোট হয়ে যায়।

বাংলাদেশ প্রায় ৫০ বছর ধরে ভারতের প্রতারণার শিকার হয়ে আসছে বন্ধুরাষ্ট্রের নামে। কোন বিষয়েই ভারত বাংলাদেশের স্বার্থকে গুরুত্ব দেয় নাই। কিন্তু আজও আমাদের দেশে কোন ঐক্যমত গড়ে ওঠে নাই।

সব দল মিলে একটা শক্ত পররাষ্ট্রনীতি গ্রহণের বদলে একদল বন্ধুরাষ্ট্র বলে বলে গোলামে পরিণত করেছে গোটা দেশকে। অন্যরা বিচ্ছিন্ন ভাবে যার যার জায়গা থেকে ইস্যু ভিত্তিক প্রতিবাদ নিয়ে বিজি। এটা করতে হবে কিন্তু কাজের কাজটা নিয়েও ভাবতে হবে।


আমি শুরু থেকে বলে আসছি ভারতই আমাদের জন্য এক নম্বর শত্রু রাষ্ট্র। সব দিক থেকে ভারত আমাদের জন্য প্রধান অন্তরায়। তাই বলেকি আমরা যুদ্ধ করব? নাহ, আমাদের সবার আগে দরকার একটা নীতিগত অবস্থান। এবং এটা কোন দলের অবস্থান না। ভারতের বিষয়ে বাংলাদেশ রাষ্ট্রের একটা নীতিগত অবস্থান ঠিক করা জরুরী।

এটা না হলে যে যখন ক্ষমতায় আসবে এই ভয়াবহ বন্ধু রুপি গজবকে ব্যবহার করে যার যার মতো করে ফায়দা নিবে।

বাংলাদেশ একটা রাষ্ট্র হলে ভারত এই সরকারের সাথে যে আচরণ করছে আর সরকারী লোকগুলা যে ভাবে কথা বলছে তা আমাদের শুনতে হত না। ভারতের বিরুদ্ধে কথা বলার জন্য প্রাণ হরণের ঘটনাও দেখতে হত না। ভারতই এই দেশকে একটা ঐক্যবদ্ধ রাষ্ট্র আকারে দেখতে চায় না।

আমাদের গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র গঠনের জন্য। জনগনের সরাসরি ভোটে সরকার গঠনের জন্য আন্দোলনের পাশা-পাশি এই বিষয়টা মনে রাখতে হবে যে, ভারত হোক, বার্মা হোক যে কোন পার্শ বা বহিঃ রাষ্ট্রের হুমকি ও অন্যায্য খবরদারির বিরুদ্ধে একটা জাতীয় ঐক্যমত আমাদের গড়ে তুলতে হবে। যে কোন পলিসি ঠিক করার আগে, কোন চুক্তি করার আগে সমাজের সব দলমতের মতামত নিতে হবে।

এই যে আমি এটা দেই, আমি ওটা দেই। এই আমি আমির অহংকার ও দাম্ভিকতা ষ্বৈরাচারি শাসকের কমন বৈশিষ্ট্য। ফেনী নদীর পানি দেওয়ার আগে এই দেশের মানুষের মতামত নিতে হবে। দালাল মিডিয়া ও বুদ্ধিজিবি না। সমাজের সব শ্রেণীর মানুষকে ডাকতে হবে। সব দলই থাকবে। ঐ এলাকার মানুষেরও মতামত নিতে হবে।

দেশের কোন সম্পদই কারো বাবার সম্পদ না। সে ক্ষমতায় থাকুক বা বিরোধী দলে থাকুক।

ভারত প্রশ্নে জাতীয় ঐক্যমত ও নীতিগত পজিশন ক্রিয়েট করার মধ্য দিয়েই বাংলাদেশ রাষ্ট্র হিসেবে নিজের যাত্রা শুরু করার ইশারা রাখতে পারে। তাই রাজনৈতিক মুক্তির আন্দোলনের পাশা-পাশি এই বিষয়টি আমাদের মনে রাখতে হবে।

লেখকঃ সম্পাদক, জবান

Facebook Comments

Hits: 51

SHARE