বিএনপি কি ধানের শীষ হারাচ্ছে?

347

শেখ মহিউদ্দিন আহমেদঃ শেখনিউজ ডট কমের রিপোর্টে অনেক আগেই বলা হয়েছিল যে বিএনপির নির্বাচিত এমপিরা শপথ নিবেন। ধীরে ধীরে অবস্থা সেইদিকেই যাচ্ছে। প্রথমে জোটের সঙ্গীদের দিয়ে যাত্রা শুরু; এইবার দলীয় নির্বাচিতরা সেটি সম্পন্ন করছেন। তবে এর যে সুদূরপ্রসারী পরিকল্পনা সেটি বিএনপি নেতারা অনুধাবন করতে পারছেন কিনা বা বোঝার ক্ষমতা আছে কিনা তাও বোঝার উপায় নেই। কারন জোট বা দল থেকে কেউই বহিস্কার হননি এখনো।

ইতিমধ্যেই ধানের শীষের প্রার্থী সুলতান মনসুর শপথ নিয়ে ধানের শীষ প্রতীকের বিষয়ে হুমকির প্লট তৈরি করে দিয়েছেন। এরপর গণফোরাম তথা জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মোদাব্বির শপথ নিয়েছেন। উল্লেখযোগ্য হচ্ছে ফ্রন্ট বা দলের নেতারা চিল্লা পাল্লা করলেও আজো কিন্তু সুলতান মনসুর বা মোদাব্বির কারোর বিরুদ্ধে দলীয় কোন একশন নেই। যা হয়েছে টা লোকদেখানো। তারই ধারাবাহিকতায় এখন বিএনপি নেতারা সংসদে যোগ দেয়া শুরু করেছেন।

প্রশ্ন উঠেছে, বিষয়টি কি পাতানো খেলা? নাকি ধানের শীষ প্রতীক বিএনপির কাছ থেকে ছিনিয়ে নেয়ার ষড়যন্ত্র? যদিও বিএনপির নেতাদের দেখে বোঝার উপায় নেই।

তবে পাতানো খেলা হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। কারন আওয়ামী লীগ ও বিএনপি যে এখন ভারতীয় ঝুড়ির আলাদা দুই জাতের আম, কিন্তু একই বিক্রেতার ফর্মুলায় তাদের চলতে হবে। তাই ডঃ কামাল হোসেন গংদের নেতৃত্বে যখন বিএনপি জোট সাচ্ছন্দে পথ চলা শুরু করেছে, সেটি যে তারা না বুঝে করেছে তা ভাবার কোন কারন নেই। এমন গর্দভ ভাবতে গেলে যে ভাববে সেই গর্দভ প্রমানিত হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল।

তবে তাসের খেলার ট্রাম্প দেয়ার মত আওয়ামী লীগ ট্রাম্প দিচ্ছে কিনা বা মালিক পক্ষ মানে ভারতীয় পক্ষ মাথায় হাত বুলিয়ে বিএনপিকে ধংস করতেই ধানের শীষ হাতছাড়া করাচ্ছে কিনা সেটি হচ্ছে দেখার বিষয়।

অনেকেই চায়ের টেবিলে অনেক কিছু বলেন কিন্তু মিডিয়ার সামনে সবাই ধোঁয়া তুলসী পাতা থাকতে চান। মুল কথা হচ্ছে বিএনপি’র বা তারেক রহমানের এখন কোন বন্ধু নাই। কোন দেশেই তাদের কোন বন্ধু নাই। তারেক রহমানকে কোন দেশ সহ্য করতে পারে না। যদিও বাংলাদেশে তার বিপুল জনসমর্থন রয়েছে। কিন্তু সেই জনসমর্থনকে কাজে লাগিয়ে কিছু করার মত মেকানিজমও তারেক রহমানের হাতে নেই। যা আছে সেই সব দিয়ে
শুধুমাত্র দৈব শক্তি ছাড়া ক্ষমতায় যাওয়ার কোন রাস্তা নেই।

এই মুহূর্তে সোজা যে চাল দেখা যাচ্ছে তাতে, ধানের শীষের এমপিরা সংসদে যাচ্ছেন, যাবেন, বিএনপি লাফ ঝাপ দেবে, কাউকে বহিস্কার করবে না; করলে এদের দ্বারাই ধানের শীষ ছিনতাই হয়ে যাবে। তাই প্রতীক রক্ষায় নিরুপায় বিএনপি। হয় বিএনপিকে অফিসিয়ালি সংসদে যেতে হবে নইলে চুপ থাকতে হবে। যেমন তারা চুপ করে আছে তাদের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার কারাগারে থাকা নিয়ে। অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন, বিএনপি কি শক্তিহীন হয়েছে নাকি তারা চায় না বেগম জিয়া মুক্তি পাক?

সামনের দিনগুলোতেই নির্ধারিত হবে ধানের শীষের ও বেগম জিয়ার ভাগ্য; তবে তা হবে তারেক রহমানের নেতৃত্বের যোগ্যতার উপর ভিত্তি করেই। এখানে নেতা কর্মীদের যোগ্যতা বা অযোগ্যতা মূল্যহীন।

লেখকঃ রাজনীতি, আইন ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব

Facebook Comments

Hits: 145

SHARE