চকবাজারের ঘটনা সফ্ট হত্যাকান্ড

253

রেজাউল করিম রনিঃ চকবাজারের এই ঘটনাকে ট্রেজেডি বলার সুযোগ নাই, এটা একটা সফ্ট হত্যাকান্ড। আমাদের কারখানা ও বাসস্থানগুলোকে মৃত্যুবান্ধব করে রাখা এবং প্রতিদিন উন্নয়নের গপ্প দিয়ে ভুলিয়ে রাখার ফল এইসব হত্যাকান্ড। 

ঢাকা শহরের মানুষকে প্রতিদিন মৃত্যু ঠেলে বেঁচে থাকতে হয় নানান ভাবে। এই শহারটাকে খুনি শহরে পরিণতক করে রাখা হয়েছে। পাবলিকও এই শহরকে ব্যবহার করে। কেউ এটাকে কেয়ার করে না। জিবনউপযোগী করে গঠন করার জন্য চেষ্টা করে না। ফলে এটাতো ঠেকানো যাবে না। একটি এলাকায় বড় গাড়ি চলাচলের মতো রাস্তা থাকতে হয়। আগ্নি নিবারণের ব্যবস্থা থাকতে হয় একটি বিল্ডিং এ। সেইফ একজিট রাখতে হয় বাড়িতে। কিন্তু আমরা খালি ব্যবহার করি। শাসকরাও যেমন ব্যবহার করে আর প্রকাশ্যে মিথ্যা বলে আমাদের ভুলিয়ে রাখে। আমরাও ভুলে থাকি।

তবে বস্তি পুড়ে গেলে। ফকিন্নি, গরিব মরে গেলে এতোটা শোক দেখা যেত না হয়তো। ফকিন্নির শোকে রোমান্টিক গল্প তেমন থাকে না সাধারণত। এইসব মধ্যবিত্তের জিবনে যেমন থাকে। এই ঘটনাতেও আছে। এখানেও যে শ্রমিকরা মারা গেছেন তাদের চেয়ে ‘মধ্যবিত্ত’ ছাত্র, প্রেমময় স্বামী-স্ত্রী, স্বপ্নবাজ তরুণ ইত্যাদিবিষয়গুলো মিডিয়ার মনযোগ বেশি পাচ্ছে বরাবরের মতোই। এই জাতি শোকও দেখায় সিলেক্টিভ ওয়েতে।

প্রতি বছর কত বস্তিতে আগুন লাগে বা লাগানো হয় এটা নিয়ে কাউকে তো কথা তুলতে দেখলাম না। নাকি সেই সব জিবন তেমন দামী না?

যা হোক। এই মৃত্যুতে যদি আমরা শিক্ষা নিতে না পারি। শহরকে বসবাসযোগ্য করতে না পারি, তাইলে আবারও এমন ঘটনা দেখার জন্য মানসিক ভাবে তৈরি থাকাতে হবে।

আমি এইসব ঘটনাকে একবাক্যে বলি, ”খুনি শহরে উন্নয়ণের গজব।”

লেখকঃ লেখক এবং সম্পাদক, জবান

Facebook Comments

Hits: 75

SHARE