হেরেও হার মানছেন না ট্রাম্প

34

ডেস্ক রিপোর্টঃ অ্যামেরিকার ক্ষমতাকেন্দ্রে একচেটিয়া আধিপত্য হারালো রিপাবলিকান দল৷ প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প প্রাণপণ চেষ্টা করেও কংগ্রেসের একটি কক্ষে দলের সংখ্যাগরিষ্ঠতা বজায় রাখতে পারলেন না৷ মিডটার্ম নির্বাচনে মার্কিন কংগ্রেসের নিম্ন কক্ষ হাউস অফ রিপ্রেজেন্টেটিভ চলে গেল বিরোধী ডেমোক্র্যাটিক দলের কাছে৷ গত ৮ বছরে এই প্রথম এমনটা ঘটলো৷ তবে সেনেটের এক তৃতীয়াংশ আসনের নির্বাচনে রিপাবলিকান দল সংখ্যাগরিষ্ঠতা আরো বাড়াতে পেরেছে৷ গতবারের তুলনায় অনেক বেশি সংখ্যক ভোটার তাঁদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করে এমন ফল সম্ভব করেছেন বলে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন৷

নিম্ন কক্ষে হার উচ্চ কক্ষে রিপাবলিকান দলের জয়ের আনন্দ ঢেকে দিচ্ছে৷ বিশেষ করে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যেভাবে দলের প্রচার অভিযানে নিজেকে ভাসিয়ে দিয়েছিলেন, তার পরেও এমন ফল সরাসরি তাঁর কার্যকাল সম্পর্কে ভোটারদের রায় হিসেবে গণ্য করা হচ্ছে৷ হারের খবর সত্ত্বেও ট্রাম্প অবশ্য দমে যাবার পাত্র নন৷ এক টুইট বার্তায় তিনি বরং দলের ‘অসাধারণ সাফল্য’ তুলে ধরে সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন৷ উল্লেখ্য, এর আগে অন্য কোনো প্রেসিডেন্ট মিডটার্ম নির্বাচনের প্রচারে এমন সক্রিয় ভূমিকা পালন করেননি৷ তার পরেও ক্ষমতা হারিয়ে রিপাবলিকান দল ট্রাম্পের উপর আরো নির্ভরশীল হয়ে পড়লো বলে অনেক বিশ্লেষক মনে করছেন৷

ওয়াশিংটনে এমন রাজনৈতিক ভূমিকম্পের ফলে বাকি দুই বছরের কার্যকালে পদে পদে বাধার মুখে পড়তে পারেন ট্রাম্প৷ আগামী জানুয়ারি মাসে সংসদের অধিবেশন শুরু হবার পর তাঁর পদক্ষেপ বা সিদ্ধান্তে বাধার পাশাপাশি গোটা প্রশাসনের কাজকর্মের উপর কড়া নজর রাখতে পারে বিরোধী ডেমোক্র্যাটিক দল৷ প্রেসিডেন্টের আয়কর সংক্রান্ত বিভ্রান্তি, তাঁর ব্যবসায়িক স্বার্থের সঙ্গে ক্ষমতার সম্ভাব্য সংঘাত, ২০১৬ সালে তাঁর প্রচার অভিযানের সঙ্গে রাশিয়ার যোগসূত্র সংক্রান্ত অভিযোগেরও তদন্ত তরান্বিত করতে পারে বিরোধীরা৷ এমনকি প্রেসিডেন্টকে ক্ষমতাচ্যুত করতে ‘ইমপিচমেন্ট’ প্রক্রিয়াও শুরু করার ক্ষমতা পাচ্ছে বিরোধীরা, যদিও সেনেটে এমন পদক্ষেপের প্রতি সমর্থন আদায় করা কঠিন হবে৷ অন্যদিকে বাধার মুখে ট্রাম্প তাঁর সব ব্যর্থতার দায় ডেমোক্র্যাটদের উপর চাপিয়ে দেবার সুযোগ পাবেন৷

জয়ের খবর পেয়ে হাউস অফ রিপ্রেজেন্টেটিভে ডেমোক্র্যাটিক নেতা ন্যান্সি পেলোসি দলের সদস্য ও সমর্থকদের উদ্দেশ্যে বলেন, তাদের জন্যই আগামীকাল অ্যামেরিকায় এক নতুন দিনের সূচনা ঘটবে৷ তাঁর মতে, অ্যামেরিকার মানুষ শান্তি চান, ফল দেখতে চান৷ উল্লেখ্য, নির্বাচনি প্রচারে নিজের সমর্থকদের উদ্বুদ্ধ করতে ট্রাম্প সম্প্রীতির বদলে বিভাজনের উপরই জোর দিয়েছিলেন৷

সংসদ নির্বাচনের পাশাপাশি বেশ কয়েকটি রাজ্যে গভর্নর পদের জন্যও নির্বাচন হয়েছে৷ ডেমোক্র্যাটিক দল মিশিগান, ইলিনয় ও ক্যানসাস রাজ্যে রিপাবলিকান দলের হাত থেকে এই পদ ছিনিয়ে নিয়েছে৷

DW (রয়টার্স, এএফপি)

 

Facebook Comments
SHARE